চট্টগ্রামে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ, আটক ১৫

চট্টগ্রামের কাজির দেউড়িতে বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এতে তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে মহানগর মহিলা দলের সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মণিসহ বিএনপির ১৫ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন।

বিএনপির নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, আজ কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নসিমন ভবন চত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের আয়োজন করে নগর বিএনপি। নগরের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশে আসার পথে পুলিশ বাঁধা দিলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

সংঘর্ষ বাধলে অগ্নিসংযোগ করা হয়

বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে বিনা উস্কানিতে নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ অতর্কিতভাবে হামলা চালায় ও লাঠিচার্জ করে। এতে বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের বেশ ক’জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

চমেক মেডিকেলে পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বড়ুয়া বলেন, কাজির দেউড়ি এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় ৩ জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন- আনিসুর রহমান (৬০), মোহাম্মদ হায়দার (২৬) ও প্রিয়াংকা চৌধুরী। তবে তাদের মধ্যে প্রিয়াংকা নারী পুলিশ সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আটক করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ

এ বিষয়ে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীরা রাস্তায় সমাবেশ করতে চাইলে পুলিশ তাদের নিরাপদ স্থানে পার্টি অফিসের ভেতরে সভা করতে বলেন। এ নিয়ে তারা পুলিশকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। দোকানপাটে ভাঙচুর চালায়। তারা সড়কে থাকা গাড়িও ভাঙচুর করে। পুলিশ বক্সেও হামলা করেছে। পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

তিনি বলেন, আমি নিজেই এবং আমার ৫ পুলিশ আহত হয়েছে। এ ঘটনায় আমরা ১৫ জনকে আটক করেছি। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*